রাজেশ খন্নাই ‘আরাধনা’ রিমেকের কথা বলেন...

একটা সময় ছিল, যখন বলিউডে প্রেমের ছবি মানেই ‘আরাধনা’ ফিল্মস ব্যানার। ‘আরাধনা’, ‘কাটি পতঙ্গ’, ‘অমর প্রেম’ একটার পর একটা হিট ছবি। শুধু হিট ছবি নয়, সঙ্গে শচীনদেব বর্মণ, রাহুলদেব বর্মণ, রাজেশ খন্না, কিশোরকুমারের মারকাটারি রসায়ন। আর এই সবকিছুকে সুন্দরভাবে যিনি পরিচালনা করতেন, তিনি হলেন শক্তি সামন্ত। সেই মারকাটারি রসায়ন আজ আর নেই। নেই সেই লেজেন্ডারি মানুষজনগুলোও। নেই শক্তি সামন্তও। তাতে কী? প্রেমের যাত্রা কি এত তাড়াতাড়ি শেষ হতে পারে? কখনই নয়। এমনটিই মনে করেন শক্তি সামন্ত-র ছেলে অসীম সামন্ত। তাই তো বহুদিন ধরে প্ল্যান করার পর ‘আরাধনা’ ফিল্মস ব্যানারকে আবার ফিরিয়ে আনলেন বলিউডে। সঙ্গে আনলেন ছেলে আদিত্য সামন্তকে। আদিত্যকে নায়ক বানিয়ে ‘আরাধনা’ ফিল্মস ব্যানারে তৈরি হল আবার আরেকটি লাভ স্টোরি। ছবির নাম ‘ইয়ে জো মহব্বত হ্যায়’। ছবিটি আগামীকাল মুক্তি পাবে। নতুন এই ছবি, ‘আরাধনা’ ফিল্মস ব্যানারের ফিরে আসা, পুরনো ছবির রিমেক- সব কিছু নিয়েই কথা হল শক্তি সামন্ত-র ছেলে অসীম সামন্ত-র সঙ্গে।

MAB Rating:
0

রঙ্গিণী সেনশর্মা
কলকাতা, ২ অগস্ট, ২০১২

Interview Asim Samanta

সিনেমায় অনেকদিন পর ফিরে এলাম। ছবি- আরাধনা ফিল্মস

প্রশ্ন : বহুদিন পর আবার ফিরে এলেন বলিউডে। কেমন লাগছে?
অসীম সামন্ত : আবার ফিরে এলাম কথাটা ভুল। ‘আরাধনা’ ফিল্মস ব্যানার ছিল; থাকবে। এর যাত্রা কখনই শেষ হয়নি। তবে হ্যাঁ, এটা বলা যেতে পারে, সিনেমায় অনেকদিন পর ফিরে এলাম। যে ধরণের সিনেমা ‘আরাধনা’ ফিল্মস ব্যানারে তৈরি হত, সেই ধরনের ছবি নিয়েই ফিরে এলাম।

প্রশ্ন : এই ফিরে আসা কি শুধুমাত্র ছেলেকে বলিউডে লঞ্চ করানোর জনই?
অসীম সামন্ত : কিছুটা তাই। তবে এই একটা কারণ নয়। আমি ইচ্ছে করলে আগেও ছেলেকে লঞ্চ করাতে পারতাম। কিন্তু তা করিনি।

প্রশ্ন : তাহলে কি কোনও বিশেষ কারণ?
অসীম সামন্ত : আমি আর আমার বাবা অনেকদিন ধরেই প্ল্যান করছিলাম নতুন একটা সিনেমা তৈরি করব। সত্যি বলতে কী, ভাল গল্প পাচ্ছিলাম না। আর আমার বাবা বলিউডে তৈরি হওয়া এখনকার ছবিগুলো নিয়ে খুব বিরক্ত ছিলেন। আর আমাকে বলতেন, বলিউডে ভাল লাভ স্টোরি কি আর তৈরি হবে না? তার উত্তরে আমি বাবাকে বলেছিলাম, চলো আমরাই বানাই। তখন বাবা বলেছিলেন, আগেরকার দিনের মতো নায়ক-নায়িকা পাব কোথায়? এই কথাবার্তার কয়েকদিন পরে আমার ছেলে আদিত্য-র কলেজ থিয়েটার দেখতে যাই। আমার বাবা খুব খুশি হন আদিত্য-র অভিনয় দেখে। তার পর বাবা আমাকে বলেন, আদিত্য-‍কে নায়ক করে ছবি করতে। একটা লাভস্টোরি বানাতে। এই ঘটনার কয়েকদিন পরে বাবা মারা যান। বলতে পারেন তাঁর স্বপ্নকে পূরণ করার জনই ফিরে আসা।

প্রশ্ন : তার মানে ‘ইয়ে জো মহব্বত হ্যায়’ আদ্যোপান্ত লাভস্টোরি?
অসীম সামন্ত : একদম। তবে এই ছবি বোকা বোকা লাভস্টোরি নয়। স্মার্ট এবং সুন্দর। ইমোশন, ড্রামা, মিউজিক সবই এই ছবিকে পারফেক্ট করে তুলেছে। আমি বলব, বহুদিন পর এই রকম একটা লাভস্টোরি দর্শক দেখতে পারবে।

প্রশ্ন : তাহলে বলছেন নতুন ছবি ‘ইয়ে জো মহব্বত হ্যায়’ সেই ফ্লেবারকে ফিরিয়ে আনতে চলেছে?
অসীম সামন্ত : দেখুন, আপনি যে সব ছবির উদাহরণ দিলেন সেগুলো লেজেন্ড। ওইগুলোর সঙ্গে নতুন এই ছবিকে কমপেয়ার করা যায় না। কমপেয়ার করা উচিতও নয়। ‘আরাধনা’ ফিল্মস সবসময় ভাল, নতুন রকমের ছবি দর্শকদের উপহার দিয়েছে। ‘ইয়ে জো মহব্বত হ্যায়’ একদম ফ্রেশ একটা ছবি। এর সঙ্গে পুরনো ছবির তুলনা চলে না।

প্রশ্ন : নতুন কী আছে এই ছবিতে?
অসীম সামন্ত : অনেক কিছু। নতুন নায়ক-নায়িকা। নতুন ধরনের গল্প। পোলান্ডের মতো আউটডোর। ভালো স্টারকাস্ট। ইমোশন, ড্রামা, ভাল গান। সব মিলিয়ে অনেক কিছু।

প্রশ্ন : এই সব তো বলিউডের সব ছবিতেই থাকে। এরকম কম্পিটিশনের বাজারে হঠাৎ ছেলেকে এরকম একটা লাভস্টোরিতে লঞ্চ করলেন?
অসীম সামন্ত : কম্পিটিশন তো সর্বত্র। যে ভাল, সে টিকে যাবে। আমার মনে হয় আদিত্য-র কাছে এটা পারফেক্ট ব্রেক। এরপর বাদ বাকিটা আদিত্যর উপরে।

প্রশ্ন : কেন আপনি তো এর পরের দু’-দুটো ছবি আদিত্য-কে নায়ক বানিয়ে করছেন। তার মধ্যে তো একটা ‘আরাধনা’ রিমেক?
অসীম সামন্ত : ঠিকই। আমার পরের ছবি ‘আরাধনা’ রিমেক। আদিত্য-ই এই ছবির নায়ক।

প্রশ্ন : তার মানে আদিত্য হলেন নতুন রাজেশ খন্না?
অসীম সামন্ত : নতুন রাজেশ খন্না? একদমই নয়। এরকম কথা বলার বা চিন্তা করার সাহস আমার নেই। রাজেশ খন্না ইজ রাজেশ খন্না। আদিত্য তো বাচ্চা।

প্রশ্ন : কিন্তু যাই বলুন, নতুন ‘আরাধনা’ বেরনোর পরে সব্বাই রাজেশ খন্না-র সঙ্গে আদিত্য-কে কমপেয়ার তো করবেই করবে...
অসীম সামন্ত : সেটা জানি বলেই তো প্রথমে ‘ইয়ে জো মহব্বত হ্যায়’ ছবিটাতে ছেলেকে লঞ্চ করাচ্ছি। ইচ্ছে ছিল নতুন ‘আরাধনা’-তেই আদিত্য-কে লঞ্চ করাব। এইরকম সমালোচনা হবে জেনেই এটা করলাম না।

প্রশ্ন : তাহলে বলতে চাইছেন, এরপর ‘আরাধনা’ মুক্তি পেলে সমালোচনা হবে না?
অসীম সামন্ত : তখনও হবে। হয়ত একটু কম। কারণ ততদিনে আদিত্যর অভিনয় লোকে দেখে ফেলবে। আদিত্য-র নিজস্ব দর্শক তৈরি হবে। তাই সমালোচনা কম হবে। তখন মানুষ শুধুমাত্র নতুন ‘আরাধনা’ দেখতে যাবে। নতুন রাজেশ খন্নাকে নয়।

প্রশ্ন : কীরকম হবে নতুন ‘আরাধনা’?
অসীম সামন্ত : গল্পটায় খুব একটা চেঞ্জ হচ্ছে না। শুধু মাত্র এই সময়ের মতো করে সাজান হচ্ছে।

প্রশ্ন : নায়ক তো পেয়ে গেলেন, শর্মিলা ঠাকুরের জাযগায় কাকে ভেবেছেন?
অসীম সামন্ত : এখনও কিছু ঠিক করিনি। নতুন মুখ নেওয়ার ইচ্ছে রয়েছে।

প্রশ্ন : আর গান? পুরনোগুলোই থাকছে, না নতুন গান থাকবে?
অসীম সামন্ত : পুরনো কিছু গান থাকছে। তবে নতুন ইনস্ট্রুমেনটেশনও থাকছে। নতুন গায়ক-গায়িকারাও গাইবেন।

প্রশ্ন : রাজেশ খন্না-ই নাকি আপনাকে ‘আরাধনা’ রিমেক করার কথা বলেছিলেন...
অসীম সামন্ত : হ্যাঁ। কাকাজিকে একদিন ডিনারের জন আমন্ত্রণ করি। খাবার টেবিলে নানা রকম কথার মাঝখানে তিনি ‘আরাধনা’ রিমেকের কথা বলেন। আর বলেন, তিনি যে কোনও রকম হেল্প করবেন এই ব্যাপারে।

প্রশ্ন : তিনিই কি আদিত্যকে নেওয়ার কথা বলেছিলেন?
অসীম সামন্ত : না। তিনি বলেছিলেন, নতুনদের নিয়েই ছবিটা তৈরি করতে।

প্রশ্ন : আপনি তো ‘অমানুষ’ ছবিটাও রিমেক করতে চান?
অসীম সামন্ত : হ্যাঁ। তবে প্রথমে ‘আরাধনা’। তার পর অন্য সব।

প্রশ্ন : রাজেশ খন্না মারা যাওয়ার আগে ওঁর সঙ্গে আপনার আর কোনও কথা হয়?
অসীম সামন্ত : অসুস্থ থাকার সময় আমি লীলাবতী হাসপাতালে দেখা করতে গিয়েছিলাম। তখন কাকাজির সঙ্গে আমার কথা হয়েছিল। উনি আমার ছেলেকে নতুন ছবির জন্য বেস্ট অফ লাক বলেছিলেন। আর আমাকে বলেছিলেন, ‘তোমার ছেলে অনেক বড় হবে একদিন’।